করতোয়া ট্র্যাজেডিতে এখনও নিখোঁজ ৩ জন

পঞ্চগড়ের করতোয়া নদীতে নৌকাডুবির ঘটনার ১০ দিন পেরিয়ে গেলেও এখনও নিখোঁজ এক শিশুসহ ৩ জন। তাই নদী তীরে অপেক্ষা আর বাড়িতে শোকের মাতম। জেলা প্রশাসন গঠিত কমিটি তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। এতে অতিরিক্ত যাত্রী ও মাঝির অদক্ষতার বিষয়টি উঠে এসেছে।

গত ২৫ সেপ্টেম্বর বিকালে বরদেশ্বরী মন্দিরে মহালয়া পূজায় অংশ নিতে যাওয়ার পথে ডুবে যায় অতিরিক্ত যাত্রীবাহী নৌকাটি। এরপর কেটে গেছে প্রায় ১০ দিন। ৬৯ জনের মরদেহ মিললেও এখনও নিখোঁজ শিশুসহ ৩ জন। সেসব বাড়িতে এখনও শোকের মাতম। অপেক্ষা প্রিয়জনের দেহাবশেষের।

পূজার আনন্দ স্পর্শ করেনি নৌট্র্যাজেডিতে প্রাণ হারানো ৬৯ জনের পরিবারকে। এলাকার মণ্ডপগুলোতেও ছিল অদ্ভুত নীরবতা।

নৌকাডুবির ঘটনায় বেঁচে ফেরা মানুষেরা জানান, অতিরিক্ত যাত্রী নিয়ে চলার কারণে মাঝপথে বন্ধ হয়ে যায় ইঞ্জিন। এরপর তীরে ভেড়াতে গিয়েই ঘটে দুর্ঘটনা। পঞ্চগড় জেলা প্রশাসক জহুরুল ইসলাম জানান, নৌকাডুবর কারণ হিসেবে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করা এবং মাঝির অদক্ষতার বিষয়টি উঠে এসেছে তদ্ন্ত প্রতিবেদনেও।

এদিকে সম্প্রতি এক সভায় চলতি বছরের শেষে কিংবা আগামী বছরের শুরুতে সেতুর নির্মাণ কাজ শুরুর কথা জানান স্থানীয় সংসদ সদস্য ও রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*