পূজা দেখার কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে হত্যা

স্বজনদের দাবি, ওই এলাকার ইমরোজ নামে এক যুবককে হত্যার জের ধরে এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে। পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। তবে এ ঘটনায় পুলিশের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

নিহত রনি যশোর সদরের চাঁচড়া গোলদারপাড়া আশ্রয়ণ প্রকল্প এলাকার বাবুর আলীর ছেলে।

নিহতের মা জানান, রনি কুমিল্লায় একটি কোম্পানিতে বিদ্যুতের টাওয়ার স্থাপনের কাজ করতো। সম্প্রতি ছুটিতে বাড়ি আসে। শনিবার বিকেলে একই এলাকার রকি, ইসজাজুল ও ইউসুফ পূজা দেখার কথা বলে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। এরপর বহু খোঁজাখুঁজি করেও তার সন্ধান মেলেনি তার। রোববার রাতে স্থানীয়দের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে নারায়ণপুর শ্মশান এলাকার একটি পুকুর থেকে রনির মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

স্বজনদের দাবি, রনিকে বুকের বামপাশে একটি গুলি ছাড়াও শরীরের বিভিন্ন স্থানে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করা হয়েছে এবং তাকে অ্যাসিড পান করিয়ে হত্যা করা হয়েছে।

তারা আরও জানান, নিহত রনি ভাতুরিয়া এলাকার ইমরোজ হত্যা মামলার আসামি ছিল। সেই হত্যাকাণ্ডের প্রতিশোধ নিতে তাকে হত্যা করা হতে পারে।

আরও পড়ুন: বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যুবককে গলা কেটে হত্যা

এদিকে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে রনির মরদেহ উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে।

এ বিষয়ে কথা বলতে কোতয়ালি থানার ওসি মো. তাজুল ইসলামের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল করা হলেও কলটি রিসিভ হয়নি।

তবে চাঁচড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর আকিকুল ইসলাম বলেন, স্থানীয়দের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। কী কারণে কারা তাকে হত্যা করেছে, তা উদঘাটনে পুলিশ তৎপর। হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের আটকের চেষ্টা করা হচ্ছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*