রাজধানীতে যাত্রী ওঠানোর প্রতিযোগিতা, দুই বাসের চাপায় প্রাণ গেল নারীর

এবার ডাক্তার দেখানোর উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হয়ে যাত্রী উঠানোর প্রতিযোগিতায় লিপ্ত দুই বাসের মধ্যেখানে চাপায় পড়ে হালিমা বেগম (৫০) নামে এক নারী মারা গেছে। নিহত হালিমা কেরানীগঞ্জের কোন্ডা ইউনিয়নের আইন্তা গ্রামের লাল মিয়ার স্ত্রী। চার সন্তানের জননী হালিমা বেগম সকাল আটটার দিকে হাসপাতালে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হন।

গতকাল সোমবার ৩ অক্টোবর সকাল সাড়ে নয়টার দিকে গুলিস্তান আনন্দ বাস কাউন্টারের সামনে দুটি বাসের চাপায় আহত হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দুপুর একটায় তার মৃত্যু হয়।

এদিকে নিহতের ছেলে রনি জানান, সকালে বারডেম হাসপাতালে যাওয়ার উদ্দেশ্যে মা বাসা থেকে বের হয়ে গুলিস্তান পৌছালে সেখানে দুটি বাস তাকে চাপা দেয়। পরে পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। মায়ের ব্যাগে ডায়েরিতে রাখা নম্বর থেকে একজন পুলিশ ফোন করে আমাকে ঘটনাটি জানায়।

এ বিষয়ে ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া জানান, মরদেহ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি থানা পুলিশকে অবহিত করা হয়েছে। আরো বিস্তারিত জানতে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ শাহাজামানের সাথে মুঠোফোনের যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন বিষয়টি এখনো পর্যন্ত আমার জানা নেই।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*