শরীরে ৪২২৫ ছিদ্র, পরেছেন ১১০০০-এর বেশি ধাতব গয়না

 

শরীরে ৪২২৫টি ছিদ্র আর ১১০০০টি ধাতব অলঙ্কার নিয়ে ঘুরছেন এক অদ্ভুত নারী! ইলেইন ডেভিডসন (৫৩) নামের এই নারী ২০০৪ সালের মে মাসে গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম লিখিয়েছেন। শুধু তাই নয় তিনি গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নিজের জায়গা ধরে রাখার জন্য শরীরে আরো ছিদ্র করা অব্যাহত রাখতে চান। ধাতব অলঙ্কার সংখ্যাও এখন বেড়েছে।

২০০০ সালের একটি গণনা অনুসারে,‘সবচেয়ে বেশি ছিদ্র করা, একক গণনার (নারী)’ রেকর্ডও তার। কান, কপাল, চোখের ভ্রু, চিবুক এবং নাক সহ মুখের অংশে ১৯২টি ছিদ্র সহ মোট ৪৬২টি ছিদ্র করেছেন এবং ৩০টি ছিদ্র রয়েছে শুধু তার জিহ্বাতে।

ইলেইন ডেভিডসন তার এই ধরনের অদ্ভুত বেশর ব্যাপারে বলেন, ‘মানুষ প্রথমে আমাকে দেখে তারপর ছুঁয়ে দেখতে চায়। কেউ কেউ তো চুমুও খেতে চায়।’
ধাতব অলঙ্কারের আড়ালে তাকে প্রায় দেখাই যায় না। এসব অলঙ্কারের ওজনও প্রায় তিন কেজি। এতো ওজন নিয়েও তিনি সব সময় পড়ে থাকেন অলঙ্কার। ঘুমাতেও নাকি তার খুব একটা অসুবিধা হয় না।

ইলেইন ডেভিডসনের জন্ম ব্রাজিলে কিন্তু এখন তিনি বসবাস করেন স্কটল্যান্ডের এডিনবার্গে। কষ্ট সহ্য করার এক অদ্ভুদ শক্তি আছে তার। ভাঙ্গা কাঁচের ওপর দিয়ে হেঁটে যাওয়া, শরীরের নানা জায়গায় ছিদ্র করা, কাঁটার বিছানায় শুয়ে থাকা এমনকি আগুনের ওপর দিয়ে হেঁটে যেতেও তিনি ব্যথা অনুভব করেন না।
২০০৯ সালে তিনি একবার বলেছিলেন, শরীরে ছিদ্র করা আমি যে খুব উপভোগ করি তা নয়। কিন্তু আমি রেকর্ড ভাঙ্গতে চাই। আমার পরিবার এগুলো পছন্দ না করে না। তবে আমি সুখি। আমি নিজেকে পরিবর্তন করে চাই এবং আমি যা তাই থাকতে চাই।

 

তার ওয়েবসাইট অনুসারে ইলেইন বিশ্বাস করেন গিনেস বুক অব ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসধারী হওয়া মানে একটি বড় দায়িত্ব পাশাপাশি একটি প্রতিশ্রুতি। যেমন, তিনি ধূমপান করেন না, অ্যালকোহল পান করেন না বা মাদক গ্রহণ করেন না। এ কারণেই তার রেকর্ডের প্রতি তিনি সম্পূর্ণরূপে নিবেদিত থাকতে পারেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*