সাংবাদিকতা বিভাগে ভর্তি হলেন ৫৫ বছর বয়সী সেই বেলায়েত শেখ

পড়াশোনায় বয়স কোনো কোনো বাধা নয়’, যুগ যুগ ধরে বলে আসা এই কথাটিই যেন সত্যি করে দেখালেন গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার ৫৫ বছর বয়সী সেই বেলায়েত শেখ। গতকাল রোববার তিনি রাজধানীর ধানমন্ডির স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের সাংবাদিকতা বিভাগে ভর্তি হয়েছেন। আজ সোমবার থেকে তার ক্লাস শুরু হয়েছে । সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে দেওয়া এক পোস্টে বেলায়েত বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

অদম্য ও সাহসী বেলায়েতএর আগে ২০১৯ সালে এসএসসি এবং ২০২১ সালে উচ্চ মাধ্যমিক সার্টিফিকেট (এইচএসসি) পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন । যে বছর তিনি এইচএসসি পরীক্ষা দেন, একই বছর তার ছোট ছেলেও এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়।

এতদিন আশপাশের মানুষের উপহাস আর বিদ্রূপ উপেক্ষা করে পড়াশোনা চালিয়ে গিয়েছেন যাওয়া বেলায়েত। তার স্বপ্ন ছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে গণযোগাযোগের ও সাংবাদিকতা বিভাগে পড়ার। স্বপ্ন পূরণে চলতি বছরের ১১ জুন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন। কিন্তু সুযোগ পাননি।

অবশ্য রাজশাহীর বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ভর্তি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে একই বিভাগে ভর্তির সুযোগ পেয়েছিলেন। কিন্তু দূরত্ব ও মায়ের আপত্তির কারণে বেলায়েত শেষ পর্যন্ত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়েই ভর্তির সিদ্ধান্ত নেন।বেলায়েত বলেন, ‘রাজশাহীতে ভর্তি হওয়ার বিষয়ে আমার মায়ের আপত্তি ছিল। এ ছাড়া গাজীপুর থেকে রাজশাহীর দূরত্ব অনেক বেশি। এখন বাড়ি থেকেই ঢাকায় ক্লাস করতে পারব।’

স্টেট ইউনিভার্সিটির জার্নালিজম, কমিউনিকেশন অ্যান্ড মিডিয়া স্টাডিজ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক নাসরিন আক্তার বলেন, ‘বেলায়েত গত ২৭ সেপ্টেম্বর সাংবাদিকতা বিভাগে ভর্তি হয়েছেন। জ্ঞান অর্জনে তার আগ্রহ আমাদের অভিভূত করেছে। তার অগ্রযাত্রার অংশ হতে পেরে আমাদের ভালো লাগছে।’

উল্লেখ্য, বেলায়েত শ্রীপুরের কেওয়া পশ্চিমখণ্ড গ্রামের হাছেন আলীর ছেলে। তার জন্ম ১৯৬৮ সালে। তিনি তিন সন্তানের বাবা। ১৯৮৩ সালে প্রথমবার মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিলেও টাকার অভাবে নিবন্ধন করতে পারেননি বেলায়েত। ১৯৮৮ সালে তিনি আবারও এসএসসি পরীক্ষা দেওয়ার চেষ্টা করেন।

 

তবে সে বছর সারা দেশে বন্যার কারণে পরীক্ষা দিতে পারেননি। এর কয়েক মাস পর তিনি একজন আলোকচিত্রী হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। বর্তমানে তিনি দৈনিক করতোয়া পত্রিকার গাজীপুর জেলার শ্রীপুর প্রতিনিধি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*