কোরআন ছিঁ’ড়ে টুকরা টুকরা করা ও পো’ড়ানোর কারণে কবিরাজ গ্রে’ফতার

কোরআন শরীফ ছিঁ’ড়ে টুকরা টুকরা করা ও পো’ড়ানোর কারণে মনির হোসেন (৩৩) নামে এক ফকিরকে (কবিরাজ) গ্রে’ফতার করেছে পুলিশ।

শরীয়তপুর জেলার ডামুড্যা উপজেলায় ঘটে এমন ঘটনা। এ ঘটনায় জাহাঙ্গীর হাওলাদার নামে একজন থানায় অ’ভিযোগ করেন। মনির হাওলাদার উপজেলার সিড্যা ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের আমির হোসেন হাওলাদারের ছেলে।

এর আগে বেশ কয়েক বছর জে’ল খেটেছে মনির। বুধবার (১৪ অক্টোবর) সকাল থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভ’ণ্ড কবিরাজ মনির কোরআনের পাতা ছিঁ’ড়ছে- এমন একটি ছবি ভাইরাল হয়।

এরপর থেকেই ডামুড্যা উপজেলায় বিভিন্ন স্থানে প্র’তিবাদের ঝ’ড় ওঠে। ধর্মপ্রাণ মুসল্লি ও সাধারণ মানুষ মনিরের ফাঁ’সির দাবি জানান। একই এলাকার জাহাঙ্গীর হাওলাদার বলেন,

ভ’ণ্ড ফকির মনির কোরআন অ’বমাননা করে মুসলমানের সর্বোচ্চ ধর্মীয়গ্রন্থ পবিত্র আল কোরআনের পাতা ছিঁ’ড়ে কুফরি কালাম করে মানুষকে ধোঁ’কা দিচ্ছে। তাই আমি বা’ধ্য হয়েই মনির হাওলাদারের বিরু’দ্ধে থানায় অ’ভিযোগ করি।

এলাকাবাসী জানান, কোরআনকে অবমাননা করে দীর্ঘ দিন যাবত মনির বিভিন্ন রোগের ঝাড়ফুঁক দিয়ে আসছে। ফকিরগিরি ও তাবিজে মানুষের উপকার হয় বলে অনেকেই জানান কিন্তু সে কীভাবে এটা করত তা কেউ জানত না।

এছাড়া তার বিরু’দ্ধে না’রী কে’লেঙ্কারিরও অ’ভিযোগ রয়েছে বেশ কয়েকটি। ডামুড্যা থানার ওসি মেহেদী হাসান বলেন, আমরা ঘটনা শুনে তদ’ন্ত করতে যাই। মনির হাওলাদারকে গ্রে’ফতার করে শরীয়তপুর আদালতে পাঠিয়েছি। সূত্রঃ বিডি২৪লাইভ ডট কম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *